Origin of the Earth


“পৃথিবীর সৃষ্টি রহস্য”
পৃথিবীতে মানুষ আসার আগেই
গ্রহটির সৃষ্টি।
সৌরজগৎ সৃষ্টির প্রায় ১০০ মিলিয়ন
বছর পর প্রাচীন
এই পৃথিবীর আবির্ভাব।
বিজ্ঞানীদের ধারণা,
আজ থেকে সাড়ে ৪শ কোটি
বছর বছর আগে পৃথিবী
নামের গ্রহটি আকৃতি পায়
, পায়লৌহের একটি কেন্দ্র
এবং একটি বায়ুমণ্ডল।
পৃথিবী ও চাঁদের সংঘর্ষ: একসময় ‘থিয়া’ নামের মঙ্গল গ্রহের আকারের
একটা গ্রহাণুর সঙ্গে
পৃথিবীর সংঘর্ষ হয়।
পৃথিবী টিকে গেলেও
গ্রহাণুটি ধ্বংস হয়ে যায়।
আর এর ধ্বংসাবশেষ
থেকে চাঁদের সৃষ্টি।
থিয়ার সঙ্গে সংঘর্ষের ফলে
উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পৃথিবী।
গলিত লাভা টগবগ করতে
থাকে সমুদ্রের চারদিকে।
শুক্রগ্রহের অবস্থা এখন যেমন
, পৃথিবীর অবস্থাও
তখন ছিলো এমনই।
পরে ধীরে ধীরে ঠাণ্ডা হয় পৃথিবী,
লাভা জমাট বেঁধে তৈরি হয় পাথর।
পানি জমে পৃথিবীতে
সাগরের জন্ম হয়।
এ সময়েই তৈরি হয় পৃথিবীর
প্রাচীনতম খনিজ, জিরকন।
যার বয়স প্রায় সাড়ে ৪শ কোটি বছর।
প্রথম মহাদেশ:– পৃথিবীর বিভিন্ন মহাদেশ বর্তমানে বসে আছে
অতিকায় সব টেকটোনিক
প্লেটের ওপরে।
তবে আগের টেকটোনিক
প্লেট ছিলো অনেক ছোট।
বিবর্তনকালে ৩.৮ বিলিয়ন
বছর আগে তৈরি হয় প্রথম মহাদেশ।
আর মোটামুটি ৩.৫ বিলিয়ন
বছর আগে সালোকসংশ্লেষণ
থেকে আসে প্রথম অক্সিজেন। বিজ্ঞানীদের ধারণা,
পাথরের ওপরে জন্মানো
সায়ানো ব্যাকটেরিয়া
বা নীলচে সবুজ শ্যাওলা
থেকে প্রথম অক্সিজেন আসে।
মহাদেশের বিভেদ: অবশ্য প্রথম
মহাদেশ তৈরির প্রায়
একবিলিয়ন বছর পৃথিবীতে
তেমন কিছুই হয়নি।
প্রাণেরতেমন কোন উন্নতিও
ঘটেনি এ সময়ে।
বলাহয়,
মহা-মহাদেশের মাঝে
একটি ছিলো প্যানগায়া।
অন্যটি ইউরেশিয়া।
প্যানগায়ায় পরে ডায়নোসরের
আবির্ভাব ঘটে।
তবে ৭৫০ বছর আগে
হঠাৎকরেই একটা বড় মহাদেশ
অন্যদের থেকে আলাদা হয়ে হয়ে যায়।
এ সময়ে পৃথিবী
একেবারে ঠাণ্ডা হয়ে
একটা বিশাল বরফের
গোলায় রূপান্তরিত হয়।
এ সময়ে হিমবাহ
দিয়ে ঢাকা ছিলো ভূপৃষ্ঠ।
এমনকি বিষুবীয় অঞ্চলেও ছিলো হিমবাহ।
প্রাণের সঞ্চার: বিজ্ঞানীদের ধারণা৬৫০ মিলিয়ন বছর আগে বায়ুমণ্ডলে
আবারো বাড়তে
শুরু করে অক্সিজেন।
এ সময়ে বিভিন্ন প্রাণীর
সৃষ্টি হতে থাকে।
এককোষীর পাশাপাশি
বহুকোষী প্রাণীরও উৎপত্তি ঘটে।
শিকার এবং শিকারির উদ্ভবও এই সময়সীমার মধ্যেই।
প্রাণীজগতে বিপর্যয়: পৃথিবীর প্রাণের ইতিহাসে সবচাইতে
বড় বিপর্যয় ঘটে আজ
থেকে ২৫২ মিলিয়ন বছরআগে
পারমিয়ান সময়ে।
মাত্র ৬০ হাজার বছরের
মধ্যে প্রায় ৯০ শতাংশ জীবের
বিলুপ্তি ঘটে।
আর ৬৬ মিলিয়ন বছর
আগে ক্রেটেশাস যুগে বিলুপ্তি ঘটে ডায়নোসর সহ
প্রায় ৮৫ শতাংশ প্রাণীর।
ধারণা করা হয়, পারমিয়ান সময়ে সাইবেরিয়ায় এক বিশাল
অগ্ন্যুৎপাতের ফলে
এই প্রাণ বিপর্যয় দেখা দেয।
এছাড়া, পরিবেশ
পরিবর্তনের কারণেও
বিলুপ্তি ঘটতে থাকে।
আর ৪৫০ মিলিয়ন বছর আগে
তুষার যুগের কারণে বিলুপ্তি ঘটে
প্রায় ৭৫ শতাংশ জীবের।
বিজ্ঞানীদের মতে,
পাঁচটি বড় বরফ যুগ দেখা যায় পৃথিবীরইতিহাসে।
মজার ব্যাপার হলো এখনও
আমরা একটি বরফ যুগেই বাস করছি।
যা শুরু হয়েছিলো
আজ থেকে প্রায়
১১,৫০০ বছর আগে থেকে।
***Mission Geography***

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s