GK – History SAQ (Part-4)


প্রশ্ন:- কোন প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায় ?
উত্তর:-শিলালিপিনামক প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়
প্রশ্ন:- প্রাচীন ভারতের প্রথম ইতিহাসমূলক গ্রন্থ কোনটি ? সেটি কার রচনা ?
উত্তর:- প্রাচীন ভারতের প্রথম ইতিহাসমূলক গ্রন্থের নামরাজতরঙ্গিনী । এটিকলহন-এর রচনা ।
প্রশ্ন:- ভারতের প্রাচীনতম নাম কি ছিল ?
উত্তর:- ভারতের প্রাচীনতম নাম ছিলজম্বুদ্বীপ।
প্রশ্ন:- কোন রাজার নাম অনুসারে ভারতবর্ষ নামকরণ হয় ?
উত্তর:- পৌরাণিক যুগের সাগর বংশের সন্তান রাজাভরতেরনাম অনুসারে আমাদের দেশের নামটি এসেছে ভারত বা ভারতবর্ষ ।
প্রশ্ন:- কোন পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ?
উত্তর:-হিমালয় পর্বতমালাভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ।
প্রশ্ন :- কোন নদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে ?
উত্তর:- সিন্ধুনদীরনাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে
প্রশ্ন :- ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন কারা ?
উত্তর:- আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমণের সময় এদেশে আসাগ্রিকরাভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন , মতান্তরে খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দিতে পারস্য সম্রাটদারায়ুসভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন ।
প্রশ্ন:- ভারতকে ‘নৃতত্বের জাদুঘর’ কে বলেছেন ?
উত্তর:- ঐতিহাসিকভিনসেন্ট স্মিথভারতকে ‘নৃতত্বের জাদুঘর’ বলেছেন।
প্রশ্ন:- দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা কোন জাতির বংশধর ?
উত্তর:- দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরাদ্রাবিড়জাতির বংশধর ।
প্রশ্ন:- ভারতেরবর্ষে মোঙ্গল জাতির বংশধর কারা ?
উত্তর:- আসামি, নেপালি, ভুটিয়া, প্রভৃতি মোঙ্গল জাতির বংশধর ।
প্রশ্ন:- বাঙালিরা কোন জাতির বংশধর ?
উত্তর:- বাঙালিরানেগ্রিটো ও নর্ডিকজাতির সংমিশ্রিত বংশধর ।
প্রশ্ন:- সাঁওতালরা কোন জাতির বংশধর ?
উত্তর:- সাঁওতালরানেগ্রিটোজাতির বংশধর ।
প্রশ্ন:- প্রাচীন ভারতের প্রশস্তিমূলক শিলালিপি গুলির নাম করো
উত্তর:- (ক) গুপ্ত সম্রাট সমুদ্র গুপ্তেরএলাহাবাদ প্রশস্তি (খ) চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলকেশীরআইহোল প্রশস্তি (গ) গুপ্ত সম্রাট স্কন্দগুপ্তেরভিতারি শিলালিপি (ঘ) গৌতমী বলশ্রী রচিতনাসিক প্রশস্তি।
প্রশ্ন:- কে অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ?
উত্তর:- উনিশ শতকের খ্যাতনামা প্রত্নতত্ববিদজেমস প্রিন্সেপঅশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ।
প্রশ্ন:- ’ হস্তিগুম্ফা লিপি’ থেকে কোন ভারতীয় রাজার কথা জানা যায় ?
উত্তর:- ’ হস্তিগুম্ফা লিপি’ থেকে কলিঙ্গরাজ খারবেলেরকথা জানা যায় ।
প্রশ্ন:- বৈদিক সাহিত্যের কোন অংশকে বেদান্ত বলা হয় ?
উত্তর:- উপনিষদকেবৈদিক সাহিত্যের বেদান্ত বলা হয় ?
প্রশ্ন:-. ভারতের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তের তিনটি গিরিপথের নাম লেখো ।
উত্তর:- তিনটি গিরিপথের নাম -খাইবার,বোলান, ও গোমাল
প্রশ্ন:- দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম লেখো ।
উত্তর:- দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নামগোদাবরী
প্রশ্ন:- ভারতের কোন কোন দিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ?
উত্তর:-দক্ষিণ-পূর্ব , দক্ষিণ-পশ্চিম , দক্ষিণদিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ।
প্রশ্ন:- কার আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ?
উত্তর:-শক সম্রাট (মহাক্ষএপ) রুদ্রদামনেরআমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ।
প্রশ্ন:- কোন শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ?
উত্তর:- ভিতারি শিলালিপিথেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ।
প্রশ্ন:- এলাহাবাদ প্রশস্তি কার রচনা ?
উত্তর:- এলাহাবাদ প্রশস্তি সমুদ্র গুপ্তের সভাকবিহরিষেণেররচনা ।
প্রশ্ন:- নাসিক প্রশস্তিতে কোন সাতবাহন রাজার কীর্তি বর্ণিত আছে ?
উত্তর:- নাসিক প্রশস্তিতে সাতবাহন বংশের শ্রেষ্ঠ রাজা গৌতমীপুত্রসাতকর্ণীর কীর্তিবর্ণিত আছে ।
প্রশ্ন:- নানাঘাট শিলালিপি থেকে কোন রাজার সম্বন্ধে জানা যায় ?
উত্তর:- নানাঘাট শিলালিপি থেকে সাতবাহন রাজাপ্রথম সাতকর্ণীরসম্বন্ধে জানা যায় ।
প্রশ্ন:- নানাঘাট শিলালিপি কার সময়ে খোদিত হয় ?
উত্তর:- সাতবাহন রাজা প্রথমসাতকর্ণীরসময়ে নানাঘাট শিলালিপি খোদিত হয় ।
প্রশ্ন:- বাণভট্ট কার সভাকবি ছিলেন ?
উত্তর:- বাণভট্টহর্ষবর্ধনেরসভাকবি ছিলেন ।
প্রশ্ন:- হর্ষচরিত কার রচনা ?
উত্তর:- হর্ষচরিত হর্ষবর্ধনের সভাকবিবাণভট্টেররচনা ।
প্রশ্ন:- বাণভট্টের লেখা একটি জীবন চরিতের নাম লেখো ?
উত্তর:- বাণভট্টের লেখা একটি জীবন চরিতের নামহর্ষচরিত ।
প্রশ্ন:- রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি কে রচনা করেন ?
উত্তর:- রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটিকলহনরচনা করেন ।
প্রশ্ন:- কলহনের রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি থেকে কোন অঞ্চলের ইতিহাস জানা যায় ?
উত্তর:- কলহনের রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি থেকেকাশ্মীরেরইতিহাস জানা যায় ।
প্রশ্ন:- অর্থশাস্ত্র গ্রন্থটি কে রচনা করেন ?
উত্তর:- অর্থশাস্ত্র গ্রন্থটি চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের মন্ত্রীকৌটিল্য বা চাণক্যরচনা করেন ।
প্রশ্ন:- আইহোল প্রশস্তি কে রচনা করেন ?
উত্তর:- চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলাকেশীর সভাকবিরবিকীর্তি আইহোল প্রশস্তি রচনা করেন ।
প্রশ্ন:- আইহোল প্রশস্তিতে কোন রাজার কীর্তি বর্ণনা করা আছে ?
উত্তর:- আইহোল প্রশস্তিতেচালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলাকেশীরকীর্তি বর্ণনা করা আছে ।
প্রশ্ন:- মুদ্রারাক্ষস কার রচনা ?
উত্তর:- মুদ্রারাক্ষস গুপ্তযুগের লেখক-কবিবিশাখাদত্তেররচনা ।
প্রশ্ন:- ভারতের পুরাণের সংখ্যা কয়টি ? এদের মধ্যে তিনটি পূরাণের নাম লেখো ।
উত্তর:- পূরাণের সংখ্যাআঠারোটি । এদের মধ্যে তিনটি হল -বিষ্ণু পুরাণ, বায়ু পূরাণ , মৎস পূরাণ।
প্রশ্ন:- প্রাচীন ভারতীয় জাতিগোষ্ঠিকে প্রধানত কয়টি শ্রেণীতে বিভাক্ত করা যায় ?
উত্তর:- প্রাচীন ভারতীয় জাতিগোষ্ঠিকে প্রধানতচারটি শ্রেণীতেবিভাক্ত করা যায় – যথা :- (ক)আর্য জাতি (খ) দ্রাবিড় জাতি (গ) নেগ্রিটো জাতি (ঘ) মঙ্গোলীয় জাতি ।
প্রশ্ন;- কারা নর্ডিক নামে পরিচিত ?
উত্তর:-আর্যরানর্ডিক নামে পরিচিত ।
প্রশ্ন:- আর্যজাতির বংশধর কারা ?
উত্তর:- কাশ্মিরী, পাঞ্জাবিপ্রভৃতি আর্যজাতির বংশধর ।
প্রশ্ন:- রাজপুতরা কোন জাতির বংশধর ?
উত্তর:- রাজপুতরাহূনজাতির বংশধর ।
প্রশ্ন:- বুদ্ধচরিতের রচয়িতা কে ?
উত্তর:- কুষাণ যুগের বৌদ্ধ দার্শনিকঅশ্বঘোষ বুদ্ধচরিত রচনা করেন ।
প্রশ্ন:- গীতগোবিন্দ কাব্য কে রচনা করেন ?
উত্তর:- কবি জয়দেবগীতগোবিন্দ কাব্য রচনা করেন
প্রশ্ন:- গৌরবাহ গ্রন্থের রচয়িতা কে ?
উত্তর:-বাকপতি রাজগৌরবাহ গ্রন্থের রচয়িতা
প্রশ্ন:- মহাকবি কালিদাসের লেখা উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ গুলির নাম লেখো
উত্তর:- মহাকবি কালিদাসের লেখা কাব্যগ্রন্থ গুলির মধ্যে ‘অভিজ্ঞানম শকুন্তলম’ , ‘মেঘদূত’ ,’ মালবিকা’প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য ।
প্রশ্ন:- সিংহলের বৌদ্ধ ধর্মগ্রন্থ গুলির মধ্যে দুটির নাম লেখো
উত্তর:- দীপবংশ ও মহাবংশ ।
প্রশ্ন:- ইন্ডিকা কে রচনা করেন ?
উত্তর:- চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজসভায় উপস্থিত গ্রিক্দূতমেগাস্থিনিসইন্ডিকা রচনা করেন ।
প্রশ্ন:- কোন বিদেশী লেখকের রচনা থেকে আমরা মৌর্যযুগের ইতিহাস জানতে পারি ?
উত্তর:- চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজসভায় উপস্থিতগ্রিক্দূত মেগাস্থিনিসেররচনা থেকে আমরা মৌর্যযুগের ইতিহাস জানতে পারি
প্রশ্ন:- সন্ধ্যাকর নন্দী কে ছিলেন ?
উত্তর:- রামচরিত গ্রন্থের রচয়িতাছিলেন সন্ধ্যাকর নন্দী ।
প্রশ্ন:- আইন-ই-আকবরি কে রচনা করেন ?
উত্তর:- আবুল ফজলআইন-ই-আকবরি রচনা করেন ।
প্রশ্ন:- প্লিনি রচিত গ্রন্থটির নাম কী ?
উত্তর:- প্লিনি রচিত গ্রন্থটির নামন্যাচারালিস হিস্টোরিয়ো। প্রথম শতাব্দিতে রচিত এই গ্রন্থ থেকে ভারতের সঙ্গে রোমান সাম্রাজ্যের বাণিজ্যিক লেনদেনের পরিচয় পাওয়া যায় ।
প্রশ্ন:- তহকিক-ই-হিন্দ কার লেখা ?
উত্তর:- তহকিক-ই-হিন্দ-এর লেখক আরব ঐতিহাসিকআল বেরুনী ।
প্রশ্ন:- রামচরিত গ্রন্থতি কে রচনা করেন ?
উত্তর:- রামচরিত গ্রন্থতিসন্ধ্যাকর নন্দীরচনা করেন ।
প্রশ্ন:- রামচরিত মানস কে রচনা করেন ?
উত্তর:- কবি তুলসীদাস ‘রামচরিত মানস’ রচনা করেন ।
প্রশ্ন:- আলবেরুনীর প্রকৃত নাম কী ? তাঁর গ্রন্থের নাম কী ?
উত্তর:- আলবেরুনীর প্রকৃত নাম আবু রিহান। তাঁর গ্রন্থের নাম তহকিক-ই-হিন্দ ।
প্রশ্ন:- প্রাচীন কালের দুই জন রোমান লেখকের নাম লেখো
উত্তর:- প্রাচীন কালের দুই জন রোমান লেখকের নামপ্লুটার্ক ও প্লিনি ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতার একজন আবিষ্কারকের নাম লেখো ?
উত্তর:- বিখ্যাত ফরাসি প্রত্নতত্ত্ববিদজেন ফ্রাঁসোয়া জারেজমেহেরগড় সভ্যতা আবিষ্কার করেন ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতা কবে আবিষ্কৃত হয় ?
উত্তর:- মেহেরগড় সভ্যতা১৯৭৪সালে আবিষ্কৃত হয় ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতা কোথায় অবস্থিত ?
উত্তর:- বর্তমান পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে ও বেলুচিস্তানের মধ্যবর্তী স্থানে – অর্থাৎবোলান গিরিপথেরকাছে ওকোয়েটাশহর থেকে ১৫০ কি.মি. দূরে মেহেরগড় সভ্যতা অবস্থিত ছিল ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতাটি ভারতের কোন প্রাক ঐতিহাসিক যুগের সভ্যতার নিদর্শন ?
উত্তর:- মেহেরগড় সভ্যতা ভারতেরনতুন প্রস্তর যুগের সমসাময়িকযুগের সভ্যতার নিদর্শন ।
প্রশ্ন:- ভারতীয় সভ্যতা কত প্রাচীন ?
উত্তর:- ভারতীয় সভ্যতাপ্রায় ৮৫০০বছরের প্রাচীন ।
প্রশ্ন:- ভারতের কোন কোন স্থানে প্রাচীন প্রস্তরযুগের নিদর্শন আবিষ্কৃত হয়েছে ?
উত্তর:- ভারতেরপশ্চিম পাঞ্জাবও দক্ষিণ ভারতেরতামিলনাড়ুঅঞ্চলে প্রাচীন প্রস্তরযুগের নিদর্শন আবিষ্কৃত হয়েছে ।
প্রশ্ন:- ভারতের সবচেয়ে প্রাচীন সভ্যতার নাম কী ?
উত্তর:- ভারতের সবচেয়ে প্রাচীন সভ্যতার নামমেহেরগড় সভ্যতা।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতা কোন যুগের সভ্যতা ?
উত্তর:- মেহেরগড় সভ্যতানতুন প্রস্তরযুগের সভ্যতা ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতা ভারতের কোন প্রাক ঐতিহাসিক যুগের সভ্যতার নিদর্শন ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতা ভারতেরতাম্রপ্রস্তর যুগেরসমসাময়িক যুগের সভ্যতার নিদর্শন ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতা কত দূর বিস্তৃত ছিল ?
উত্তর:- বর্তমান পাকিস্তানের অন্তর্গতবালুচিস্তানের জোব নদী থেকে পশ্চিম ভারতের সিন্ধু নদ পর্যন্তমেহেরগড় সভ্যতা বিস্তৃত ছিল ।
প্রশ্ন:- পশুপালনের ওপর ভিত্তি করে ভারতবর্ষের কোন সভ্যতা গড়ে উঠেছিল ?
উত্তর:- পশুপালনের ওপর ভিত্তি করে ভারতবর্ষেরমেহেরগড় সভ্যতাগড়ে উঠেছিল ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতার প্রকৃতি কী ধরনের ছিল ?
উত্তর:- মেহেরগড় সভ্যতা ছিলকৃষিকেন্দ্রিক ।
প্রশ্ন:- বৈদিক সভ্যতা ভারতের কোন প্রাক ঐতিহাসিক যুগের সভ্যতার নিদর্শন ?
উত্তর:- বৈদিক সভ্যতা ছিললৌহযুগের সমসাময়িক যুগেরসভ্যতার নিদর্শন ।
প্রশ্ন:- মেহেরগড় সভ্যতার ৫টি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রের নাম করো ?
উত্তর:- মেহেরগড় সভ্যতার ৫টি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রের নাম হল(ক) মেহেরগড় (খ) কিলে গুল মহম্মদ (গ) কোটদিজি (ঘ) গুমলা (ঙ) মুন্ডিগাক ।
প্রশ্ন:- সিন্ধু সভ্যতার নিদর্শন কে আবিস্কার করেন ?
উত্তর:- বাঙালি প্রত্নতত্ত্ববিদরাখালদাস বন্দোপাধ্যায়সিন্ধু সভ্যতা নিদর্শন আবিস্কার করেন ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতার যন্ত্রপাতি কোন ধাতুতে নির্মিত ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতার যন্ত্রপাতিতামা ও টিন -এর সংমিশ্রণে প্রস্তুত ব্রোঞ্জ ধাতুদিয়ে নির্মিত ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতা কী ধরনের সভ্যতা ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতা ছিল একটিনগর কেন্দ্রিকসভ্যতা ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতার মূল ভিত্তি কী ছিল ?
উত্তর:- প্রকৃতিগত ভাবে হরপ্পা সভ্যতা একটি নগর কেন্দ্রিক সভ্যতা হলেও হরপ্পা সভ্যতার মূল ভিত্তি ছিলকৃষি ও পশুপালন
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতার মানুষেরা কোন পশুর ব্যবহার জানত না ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতার মানুষেরাঘোড়ারব্যবহার জানত না ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতা কত দিন আগে গড়ে উঠেছিল ?
উত্তর:-খ্রিস্টপূর্ব প্রায় তিন হাজার বৎসরআগে হরপ্পা সভ্যতা গড়ে উঠেছিল ।
প্রশ্ন:- ভারতবর্ষে প্রাক আর্যযুগের প্রাচীনতম বন্দরের নিদর্শন কোথায় পাওয়া গেছে ?
উত্তর:- গুজরাটেরলোথাল-এ প্রাক আর্যযুগের প্রাচীনতম বন্দরের নিদর্শন কোথায় পাওয়া গেছে ।
প্রশ্ন:- ভারতের প্রথম নগরায়নের চিহ্ন কোন অঞ্চলের ধ্বংসাবশেষ থেকে পাওয়া গেছে ?
উত্তর:-হরপ্পা-মহেঞ্জোদারো অঞ্চলের ধ্বংসাবশেষথেকে ভারতের প্রথম নগরায়নের চিহ্ন পাওয়া গেছে ।
প্রশ্ন:- ভারতের প্রথম নগরায়নের যুগের একটি শহরের নাম লেখো ?
উত্তর:- ভারতের প্রথম নগরায়নের যুগের একটি শহরের নামমহেঞ্জোদারো।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতা কবে আবিস্কৃত হয় ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতা১৯২৪ সালেআবিস্কৃত হয় ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতার কালসীমা লেখো ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতার কালসীমা হল৩,০০০ – ১,৫০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ।
প্রশ্ন:- সিন্ধু সভ্যতা আবিস্কারের সঙ্গে জড়িত একজন প্রত্নতাত্ত্বিকের নাম লেখো ?
উত্তর:- বাঙালি প্রত্নতত্ত্ববিদরাখালদাস বন্দোপাধ্যায়সিন্ধু সভ্যতা আবিস্কার করেন ।
প্রশ্ন:- ভারতবর্ষের প্রাচীনতম বন্দর কোনটি ?
উত্তর:- ভারতবর্ষেরর প্রাচীনতম বন্দরের নাম গুজরাটেরলোথাল।
প্রশ্ন:- রাজস্থানের কোন অঞ্চলে সিন্ধু সভ্যতার নিদর্শন পাওয়া গেছে ?
উত্তর:- রাজস্থানেরকালিবঙ্গানঅঞ্চলে সিন্ধু সভ্যতার নিদর্শন পাওয়া গেছে ।
প্রশ্ন:- কোন বন্দরের মাধ্যমে হরপ্পা-সভ্যতার বৈদেশিক বাণিজ্য চলত ?
উত্তর:-লোথাল বন্দরেরমাধ্যমে হরপ্পা-সভ্যতার বৈদেশিক বাণিজ্য চলত ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা-সভ্যতার লিপির নাম কি ?
উত্তর:- হরপ্পা-সভ্যতার লিপির নামসিন্ধুলিপি।
প্রশ্ন:- হরপ্পা সভ্যতা কোন সভ্যতার সমসাময়িক ?
উত্তর:- হরপ্পা সভ্যতামেসোপটেমিয়া এবং সুমেরীয়সভ্যতার সমসাময়িক ।
প্রশ্ন:- হরপ্পা কোথায় অবস্থিত ?
উত্তর:- হরপ্পা পাকিস্তানের পাঞ্জাব রাজ্যেরমন্টগোমারিজেলায় অবস্থিত ।
প্রশ্ন:- প্রাচীন ভারতে কারা আর্য নামে পরিচিত ?
উত্তর:- আর্যরা ছিল ভারতের বহিরগত দীর্ঘকায় গৌরবর্ণ ও সুদর্শন এক জাতি– যাদের আদি বাসস্থান ছিল মধ্য এশিয়া অথবা রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চল কিংবা ইউরোপ মহাদেশেরঅস্ট্রিয়া , হাঙ্গেরী অথবা চেকোস্লোভাকিয়ারবিস্তীর্ণ অঞ্চলে ।
প্রশ্ন:- আর্যরা প্রথম কবে ভারতে আসে ?
উত্তর:- আনুমানিক ১,৫০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে আর্যরা প্রথম ভারতে আসে।
প্রশ্ন:- আর্যরা প্রথম ভারতে কোথায় বসতি স্থাপন করে ?
উত্তর:- উত্তর ভারতের সিন্ধু নদের পাঁচটি উপনদী, সরস্বতী এবং উচ্চ গাঙ্গেয় উপত্যকায় সপ্তসিন্ধু অঞ্চলে আর্যরা প্রথম ভারতে বসতি স্থাপন করে ।
প্রশ্ন:- আর্যদের স্বর্ণমুদ্রার নাম কী ?
উত্তর:- আর্যদের স্বর্ণমুদ্রার নাম হলনিষ্ক।
প্রশ্ন:- আর্যদের প্রধান ধর্মগ্রন্থের নাম কী ?
উত্তর:- আর্যদের প্রধান ধর্মগ্রন্থের নামবেদ।
প্রশ্ন:- ভারতের প্রাচীনতম সাহিত্য কোনটি ?
উত্তর:- ভারতের প্রাচীনতম সাহিত্য হলবেদ।
প্রশ্ন:- বিশ্বের দরবারে হরপ্পা সভ্যতার প্রথম অবদানটির নাম লেখো ?
উত্তর:- বিশ্বের দরবারে হরপ্পা সভ্যতার প্রথম অবদান হলউন্নত নগর পরিকল্পনা।
প্রশ্ন:- কোন সভ্যতা হরপ্পা সংস্কৃতির পথিকৃত ছিল ?
উত্তর:-মেহেরগড় সভ্যতাহরপ্পা সংস্কৃতির পথিকৃত ছিল।
প্রশ্ন:- মহেঞ্জোদরো কোথায় অবস্থিত ?
উত্তর:- বর্তমান পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশেরলারকানাজেলায় ,সিন্ধু নদের পশ্চিম তীরেমহেঞ্জোদরো অবস্থিত ।
প্রশ্ন:- মহেন-জো-দরো শব্দের অর্থ কী ?
উত্তর:- মহেন-জো-দরো শব্দের অর্থ হলমৃতের স্তূপ।
প্রশ্ন:- প্রাচীন ভারতের দুটি নগরের নাম লেখো ?
উত্তর:- প্রাচীন ভারতের দুটি নগরের নামহরপ্পা ও লোথাল।
প্রশ্ন:- বেদের অপর নাম কী ?
উত্তর:- বেদের অপর নামশ্রুতি।
প্রশ্ন:- বৈদিকযুগের প্রাচীনতম গ্রন্থ কোনটি ?
উত্তর:- বৈদিকযুগের প্রাচীনতম গ্রন্থ নামঋকবেদ।
প্রশ্ন:- ঋকবৈদিক যুগের প্রধান দেবতার নাম কী ?
উত্তর:- ঋকবৈদিক যুগের প্রধান দেবতার নামঅগ্নি।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s