একনজরে ভারত


১) ভৌগোলিক অবস্থানঃ- এশিয়া মহাদেশ (দক্ষিন এশিয়া)।
২) অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাগত অবস্থানঃ- ০৮ ডিগ্রি ০৪ মিনিট উত্তর অক্ষাংশ থেকে ৩৭ ডিগ্রি ০৬ মিনিট উত্তর অক্ষাংশ এবং ৬৮ ডিগ্রি ০৭ মিনিট পূর্ব দ্রাঘিমা থেকে ৯৭ ডিগ্রি ২৫ মিনিট পূর্ব দ্রাঘিমা (সম্পূর্ন রূপে উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত)।
৩) আয়তনঃ- ৩২,৮৭,২৬৩ বর্গ কিমি (আয়তন অনুসারে, পৃথিবীর সপ্তম বৃহত্তম দেশ)।
৪) জনসংখ্যাঃ- ১২১,০১,৯৩,৪২২ জন (২০১১ জনগননা অনুসারে) (জনসংখ্যা অনুসারে, পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ)।
৫) জনঘনত্বঃ- ৩৮২ জন প্রতি বর্গ কিমি (২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬)নারী পুরুষ অনুপাতঃ- ৯৪০ জন নারী প্রতি হাজার পুরুষ পিছু (২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৭) স্বাক্ষরতা হারঃ- ৭৪.০৪% (২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৮) প্রতিবেশী দেশঃ – স্হলভাগে — ৭ টি (চীন, নেপাল, ভুটান, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, মায়ানমার) এবং জলভাগে — ২ টি (শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ)।
৯) বৃহত্তম প্রতিবেশী দেশঃ- চীন।
১০) ক্ষুদ্রতম প্রতিবেশী দেশঃ- মালদ্বীপ।
১১) উপকূলরেখার দৈর্ঘ্যঃ- ৭৫১৭ কিমি (মূল ভূখন্ডের উপকূল রেখার দৈর্ঘ্য ৫৪২৩ কিমি এবং দ্বীপ ও দ্বীপপুঞ্জসমূহের উপকূলরেখার দৈর্ঘ্য ২০৯৪ কিমি)।
১২) জলবায়ুঃ- উষ্ণ ও আর্দ্র ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ু।
১৩) সময় অঞ্চলঃ- GMT + ৫:৩০
১৪) সরকারি নামঃ- ভারত গণরাজ্য (Republic of India)।
১৫) স্বাধীনতা লাভঃ- ১৫ ই আগস্ট, ১৯৪৭ (ব্রিটিশ শাসন থেকে)।
১৬) জাতীয় সঙ্গীত ( Anthem):- জনগনমন (রচয়িতা – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯১১ ; জাতীয় সঙ্গীত হিসেবে গৃহীত হয় ২৪ শে জানুয়ারি, ১৯৫০)
১৭) জাতীয় গান (Song):- বন্দেমাতরম ( রচয়িতা- বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, আনন্দমঠ উপন্যাস, ১৮৮২ ; জাতীয় গান হিসেবে গৃহীত হয় ২৪ শে জানুয়ারি, ১৯৫০)
১৮) জাতীয় প্রতীকঃ- অশোক স্তম্ভ।
১৯) জাতীয় বাণীঃ- সত্যমেব জয়তে।
২০) রাজধানীঃ- নতুন দিল্লি।
২১) বৃহত্তম শহর ও বাণিজ্যিক রাজধানীঃ- মুম্বই।
২২) সরকারি ভাষাঃ- হিন্দি & ইংরেজি (ভারতের সংবিধানে ২২ টি দেশীয় ভাষাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে — অসমীয়া, বাংলা, বোড়ো, ডোগরি, গুজরাটি, হিন্দি, কন্নড়, কাশ্মীরি, কোঙ্কনি, মৈথিলী, মালয়ালাম, মণিপুরি, মারাঠি, নেপালি, ওড়িয়া, পাঞ্জাবী, সংস্কৃত, সাঁওতালি, সিন্ধি, তামিল, তেলেগু, উর্দু)।
২৩) বর্তমান রাষ্ট্রপতিঃ- প্রণব মুখোপাধ্যায়।
২৪) বর্তমান প্রধানমন্ত্রীঃ-নরেন্দ্র মোদী।
২৫) প্রশাসনিক বিভাগঃ- রাজ্য — ২৯ টি এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ৭ টি।
২৬) সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গঃ- গডউইন অস্টিন বা K2 (উচ্চতা – ৮৬১১ মিটার ; জম্মু ও কাশ্মীর) ।
২৭) বৃহত্তম ও দীর্ঘতম নদীঃ- গঙ্গা (দৈর্ঘ্য ২৫২৫ কিমি)।
২৮) প্রাচীনতম পর্বতঃ- আরাবল্লী পর্বত (২৫০ কোটি বছর পূর্বে সৃষ্টি)।
২৯) বৃহত্তম স্বাদু জলের হ্রদঃ- উলার (জম্মু ও কাশ্মীর ; আয়তন – ৩০-২৬০ বর্গ কিমি)।
৩০) বৃহত্তম লবনাক্ত জলের হ্রদঃ- সম্বর হ্রদ (রাজস্থান ; আয়তন ১৯০-২৩০ বর্গ কিমি)।
৩১) বৃহত্তম উপহ্রদঃ- চিল্কা হ্রদ (ওড়িশা ; আয়তন – ৯০০-১১৬৫ বর্গ কিমি)।
৩২) দীর্ঘতম হ্রদঃ- ভেম্বানাদ কয়াল (কেরালা ; দৈর্ঘ্য ৯৬.৫ কিমি)।
৩৩) জাতীয় নদীঃ- গঙ্গা।
৩৪) আয়তন অনুসারে, বৃহত্তম রাজ্যঃ- রাজস্থান (আয়তন – ৩,৪২,২৩৯ বর্গ কিমি)।
৩৫) আয়তন অনুসারে, ক্ষুদ্রতম রাজ্যঃ- গোয়া (আয়তন – ৩৭০২ বর্গ কিমি)।
৩৬) আয়তন অনুসারে বৃহত্তম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ (আয়তন – ৮২৪৯ বর্গ কিমি)।
৩৭) আয়তন অনুসারে, ক্ষুদ্রতম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- লাক্ষাদ্বীপ (আয়তন – ৩২ বর্গ কিমি)।
৩৮) জাতীয় ফুল – পদ্ম।
৩৯) জাতীয় পাখি – ময়ূর।
৪০) জাতীয় পশু – রয়েল বেঙ্গল টাইগার।
৪১) দীর্ঘতম রেলপথঃ- ডিব্রুগড় – কন্যাকুমারী বিবেক এক্সপ্রেস (রেলপথটির দৈর্ঘ্য – ৪২৩৩ কিমি)।
৪২) দীর্ঘতম সড়কপথ / জাতীয় সড়কপথঃ- NH ৪৪ (শ্রীনগর থেকে কন্যাকুমারী ; সড়কপথটির দৈর্ঘ্য – ৩৭৪৫ কিমি)।
৪৩) প্রাচীনতম সড়কপথঃ- গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রোড (NH ২)।
৪৪) উষ্ণতম স্থানঃ- ফালোদি (যোধপুর জেলা, রাজস্থান ; উষ্ণতা ৫১ ডিগ্রি C)।
৪৫) শীতলতম স্থানঃ- দ্রাস (কার্গিল জেলা, জম্মু ও কাশ্মীর ; উষ্ণতা -৩৩.৯ ডিগ্রি C।
৪৬) সর্বাধিক বৃষ্টিপাতযুক্ত স্থানঃ- মৌসিনরাম ( পূর্ব খাসি পার্বত্য জেলা, মেঘালয় ; বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাত ১১৮৭২ মিমি)।
৪৭) জনসংখ্যা অনুসারে, বৃহত্তম রাজ্যঃ- উত্তরপ্রদেশ ( জনসংখ্যা – ১৯,৯৫,৮১,৪৭৭ জন ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৪৮) জনসংখ্যা অনুসারে, ক্ষুদ্রতম রাজ্যঃ- সিকিম (জনসংখ্যা – ০৬,০৭,৬৮৮ জন ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৪৯) সর্বাধিক জনঘনত্বযুক্ত রাজ্যঃ- বিহার (জনঘনত্ব – ১১০২ জন/বর্গ কিমি ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫০) সর্বনিম্ন জনঘনত্বযুক্ত রাজ্যঃ- অরুণাচল প্রদেশ (জনঘনত্ব – ১৭ জন/বর্গ কিমি ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫১) জনসংখ্যা অনুসারে, বৃহত্তম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- দিল্লি-NCT (জনসংখ্যা – ০১,৬৭,৫৩,২৩৫ জন ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫২) জনসংখ্যা অনুসারে, ক্ষুদ্রতম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- লাক্ষাদ্বীপ (জনসংখ্যা – ৬৪,৪২৯ জন ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৩) সর্বাধিক জনঘনত্বযুক্ত অঞ্চলঃ- উত্তর পূর্ব জেলা ; দিল্লি-NCT (জনঘনত্ব – ৩৭,৩৪৬ জন/বর্গ কিমি ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৪) সর্বনিম্ন জনঘনত্বযুক্ত অঞ্চলঃ- ডিবং উপত্যকা, অরুণাচল প্রদেশ (জনঘনত্ব – ১ জন/বর্গ কিমি ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৫) সর্বাধিক জনঘনত্বযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- দিল্লি-NCT (জনঘনত্ব – ১১,২৯৭জন/বর্গ কিমি ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৬) সর্বনিম্ন জনঘনত্বযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ (জনঘনত্ব – ৪৬ জন/বর্গ কিমি ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৭) সর্বাধিক নারী – পুরুষ অনুপাতযুক্ত রাজ্যঃ- কেরালা (১০৮৪ জন নারী প্রতি হাজার পুরুষ পিছু ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৮) সর্বনিম্ন নারী – পুরুষ অনুপাতযুক্ত রাজ্যঃ- জম্মু ও কাশ্মীর (৮৩৩ জন নারী প্রতি হাজার পুরুষ পিছু ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৫৯) সর্বাধিক নারী – পুরুষ অনুপাতযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল – পুদুচেরি (১০৩৮ জন নারী প্রতি হাজার পুরুষ পিছু ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬০) সর্বনিম্ন নারী – পুরুষ অনুপাতযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- দমন ও দিউ (৬১৮ জন নারী প্রতি হাজার পুরুষ পিছু ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬১) সর্বাধিক স্বাক্ষরতাহারযুক্ত রাজ্যঃ- কেরালা (স্বাক্ষরতা হার ৯৩.৯% ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬২) সর্বনিম্ন স্বাক্ষরতাহারযুক্ত রাজ্যঃ- বিহার (স্বাক্ষরতা হার ৬৩.৮% ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬৩) সর্বাধিক স্বাক্ষরতাহারযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- লাক্ষাদ্বীপ (স্বাক্ষরতা হার ৯২.৩% ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬৪) সর্বনিম্ন স্বাক্ষরতাহারযুক্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলঃ- দাদরা ও নগর হাভেলি (স্বাক্ষরতা হার ৭৭.৭% ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬৫) মানুষ জমি অনুপাতঃ- ৪২৮ জন/বর্গ কিমি (২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬৬) পুরুষ স্বাক্ষরতা হারঃ- ৮২.১৪% (২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬৭) মহিলা স্বাক্ষরতা হারঃ- ৬৫.৪৬% (২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৬৮) আয়তন অনুসারে, বৃহত্তম জেলাঃ- কচ্ছ জেলা ; গুজরাট (আয়তন – ৪৫,৬৭৪ বর্গ কিমি)।
৬৯) আয়তন অনুসারে, ক্ষুদ্রতম জেলাঃ- মাহে জেলা ; পুদুচেরি (আয়তন – ৮.৭ বর্গ কিমি)।
৭০) জনসংখ্যা অনুসারে, বৃহত্তম জেলাঃ- উত্তর ২৪ পরগণা ; পশ্চিমবঙ্গ (জনসংখ্যা – ১,০০,৮২,৮৫২ জন ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৭১) জনসংখ্যা অনুসারে, ক্ষুদ্রতম জেলাঃ- উর্দ্ধ ডিবং উপত্যকা জেলা ; অরুণাচল প্রদেশ (জনসংখ্যা – ৭৯৪৮ জন ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৭২) আয়তন অনুসারে, বৃহত্তম শহরঃ- দিল্লি-NCR (আয়তন – ১৯৪২ বর্গ কিমি)।
৭৩) দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতঃ- মেরিনা বিচ ; চেন্নাই, তামিলনাড়ু (দৈর্ঘ্য ৬.৫ কিমি)।
৭৪) বৃহত্তম নদী দ্বীপঃ- মাজুলি ; ব্রহ্মপুত্র নদ, আসাম (আয়তন ৩৫২ বর্গ কিমি)।
৭৫) বৃহত্তম নদী বদ্বীপঃ- গাঙ্গেয় বদ্বীপ (সুন্দরবন অঞ্চল) ; পশ্চিমবঙ্গ।
৭৬) বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ অরণ্যঃ- সুন্দরবন (পশ্চিমবঙ্গ ; আয়তন ৪১১০ বর্গ কিমি)।
৭৭) প্রমাণ দ্রাঘিমারেখাঃ- ৮২ ডিগ্রি ৩০ মিনিট পূর্ব।
৭৮) উত্তর – দক্ষিন বিস্তৃতিঃ- ৩২১৪ কিমি।
৭৯) পূর্ব – পশ্চিম বিস্তৃতিঃ- ২৯৩৩ কিমি।
৮০) স্থলসীমানার দৈর্ঘ্যঃ- ১৫,২০০ কিমি।
৮১) উত্তরতম বিন্দুঃ- ইন্দিরা কল (সিয়াচেন হিমবাহ ; লেহ জেলা ; জম্মু ও কাশ্মীর)।
৮২) দক্ষিনতম বিন্দুঃ- ইন্দিরা পয়েন্ট / পিগম্যালিয়ন পয়েন্ট (গ্রেট নিকোবর দ্বীপ ; নিকোবর জেলা ; আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ)।
৮৩) পূর্বতম বিন্দুঃ- কিবিথু (আনজাও জেলা ; অরুনাচল প্রদেশ)।
৮৪) পশ্চিমতম বিন্দুঃ- গুহার মোতি ও স্যার ক্রিক খাঁড়ি (কচ্ছ জেলা ; গুজরাট)।
৮৫) শুষ্কতম / সর্বনিম্ন বৃষ্টিপাতযুক্ত স্থানঃ- লেহ (লেহ জেলা, জম্মু ও কাশ্মীর ; বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাত ১০৫.৫ মিমি)।
৮৬) বৃহত্তম মরুভূমিঃ- থর মরুভূমি (রাজস্থান, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, গুজরাট ; আয়তন ৩,২০,০০০ বর্গ কিমি)।
৮৭) প্রধান ধর্ম :- হিন্দু (মোট জনসংখ্যার ৭৯.৮% ; ২০১১ জনগননা অনুসারে)।
৮৮) নিম্নতম স্থানঃ- কুট্টানাড়ু (আলাপ্পুঝা ও কোট্টায়াম জেলা, কেরালা ; উচ্চতা -২.২ মিটার, অর্থাৎ সমুদ্রতল থেকে ২.২ মিটার নীচু)।
৮৯) বৃহত্তম সমভূমিঃ- গাঙ্গেয় সমভূমি (উত্তরপ্রদেশ, বিহার ও পশ্চিমবঙ্গ ; আয়তন ৩,৭৫,০০০ বর্গ কিমি)।
৯০) প্রধান জলবিভাজিকাঃ- বিন্ধ্য পর্বত (দৈর্ঘ্য ১০৫০ কিমি)।
৯১) দীর্ঘতম হিমবাহঃ- সিয়াচেন হিমবাহ (জম্মু ও কাশ্মীর ; দৈর্ঘ্য ৭৬ কিমি)।
৯২) বৃহত্তম নদী অববাহিকাঃ- গঙ্গা নদী অববাহিকা (আয়তন ৮,৬১,০০০ বর্গ কিমি)।
৯৩) উচ্চতম জলপ্রপাতঃ- কুঞ্চিকাল জলপ্রপাত (উচ্চতা ৪৫৫ মিটার ; বরাহি নদীর ওপর ; শিমোগা জেলা, কর্ণাটক)।
৯৪) সর্বাধিক জলপ্রপাতযুক্ত রাজ্যঃ- কর্ণাটক।
৯৫) উচ্চতম মালভূমিঃ- লাদাখ মালভূমি (জম্মু ও কাশ্মীর ; গড় উচ্চতা ৩০০০ মিটার)।
৯৬) বৃহত্তম মালভূমিঃ- দাক্ষিনাত্য মালভূমি (আয়তন ৪,২২,০০০ বর্গ কিমি)।
৯৭) উচ্চতম আগ্নেয়গিরিঃ- ব্যারেন দ্বীপ (উত্তর ও মধ্য আন্দামান জেলা, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ ; উচ্চতা ৩৫৪ মিটার ; বর্তমানে ভারতের একমাত্র সক্রিয় আগ্নেয়গিরি)।
৯৮) বৃহত্তম বহুমুখী নদী পরিকল্পনাঃ- ভাকরা নাঙ্গাল নদী পরিকল্পনা।
৯৯) দীর্ঘতম উপকূলরেখা যুক্ত রাজ্যঃ- গুজরাট (উপকূলরেখার দৈর্ঘ্য ১৬০০ কিমি)।
১০০) সর্বাধিক অরণ্যযুক্ত রাজ্যঃ- মধ্যপ্রদেশ (মোট আয়তন অনুসারে ; অরণ্য অঞ্চলের আয়তনের পরিমাণ ৭৭,৫২২ বর্গ কিমি) ; মিজোরাম (মোট আয়তনের শতাংশ অনুসারে ; অরণ্য অঞ্চলের শতাংশের পরিমাণ ৯০.৩৮%)।
_________________________________
Arijit Dabangg Sinha (Parsola ★ Bankura ★ Mob 08016427527)

©Mission Geography India.

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s